সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দায়িত্ব-জ্ঞানহীন কোনো কাজ আপনার সমাজিক ও কর্ম জীবনে প্রভাব ফেলতে পারে খুব খারাপভাবে। তবে খুব সামান্য একটু দৃষ্টি রাখলেই এসব বিষয় এড়িয়ে যাওয়া সম্ভব খুব সহজেই।

বেআইনি কিছু পোস্ট করা
সামাজিক যোগাযোগ মধ্যম ব্যবহারের সময় বেআইনি কিছু পোস্ট করা থেকে বিরত থাকুন। আপনি যদি এ রকম কোনো কিছু পোস্ট করেন তবে তা এখন না হলেও ভবিষ্যতে আপনার জন্য ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে পারে।

বসকে নিয়ে বাজে মন্তব্য
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারের সময় আপনার বসকে নিয়ে বাজে মন্তব্য করা থেকে বিরত থাকুন। আজ হয়তো ফেসবুকে আপনার বসকে নিয়ে বাজে কোনো মন্তব্য করলেন, সে হয়তো তৎক্ষণাৎ কোনো ব্যবস্থা না নিয়ে পরবর্তীতে আপনার পদোন্নতি ঠেকিয়ে দিতে পারেন।

অপেশাদারি কর্মকাণ্ড থেকে বিরত থাকুন
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপেশাদারি কর্মকাণ্ড থেকে বিরত থাকুন। ভবিষ্যতে কোনো প্রতিষ্ঠানে চাকরি নিতে গেলে তারা আপনার সম্পর্কে খোঁজ-খবর নিতে গিয়ে আপনার প্রোফাইলে কোনো অপেশাদারি কর্মকাণ্ড দেখলে তা চাকরিদাতার ওপর প্রভাব ফেলতে পারে।

গোপনীয় কোনো বিষয় পোস্ট করা
গোপনীয় কিছু সামাজিক যোগাযোগ মধ্যমে পোস্ট করা থেকে বিরত থাকুন। কারণ হ্যাক না করেও আপনার পোস্ট দেখতে পারেন যে কেউ।

নির্দিষ্ট জায়গাতে চেক–ইন থেকে বিরত থাকুন
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চেক-ইন দেওয়ার সময় নির্দিষ্ট জায়গাটি চেক-ইন দেওয়া থেকে বিরত থাকুন। নির্দিষ্ট জায়গায় চেক-ইন দিলে আপনি কোথায় আছেন, সেটি আপনার পরিচিত জনদের জন্য বুঝতে পারাটা সহজ হলেও এটি আপনার জন্য বিপদও ডেকে আনতে পারে, তাই এ বিষয়টিতে সতর্ক থাকুন।

মিথ্যা, প্রতারণা এবং নকল থেকে বিরত থাকুন
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারের সময় উপরের বিষয়গুলো থেকে বিরত থাকুন।

গালি দেওয়া থেকে বিরত থাকুন
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গালি দেওয়া থেকে বিরত থাকুন। আপনার কোনো গালি কিংবা মন্দ কথার জন্য বেধে যেতে পারে সংঘর্ষ এবং এ থেকে আত্মহত্যার মতো ঘটনাও ঘটতে পারে, যা আপনাকে আদালত পর্যন্ত টেনে নিয়ে যেতে পারে। সুতরাং সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের সময় এ বিষয়টির দিকে নজর দিন।

হুমকি দেওয়া থেকে বিরত থাকুন
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারের সময় পরিচিত কিংবা অপরিচিত কাউকে হুমকি দেওয়া থেকে বিরত থাকুন। যুক্তরাষ্ট্রে একবার অ্যালেক্সান্ডার সং নামের এক কিশোর রেডিটে লিখেছিল, জাতীয় সংবাদ শিরোনাম বানানোর জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যক লোক হত্যা করুন। আর এরপর পুলিশ ওই কিশোরকে আটক করে, যদিও তার কাছে কোনো অস্ত্র ছিল না।

সামাজিক